শনিবার ২৮ নভেম্বর, ২০২০

ক্ষমা চাইতে এমপি খোকাকে আল্টিমেটাম, একাট্টা আওয়ামী লীগ নেতারা

শুক্রবার, ২০ নভেম্বর ২০২০, ২২:২৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: আগামী তিন দিনের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ লিয়াকত হোসেন খোকাকে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছেন জেলা ও সোনারগাঁয়ের আওয়ামীলীগ নেতারা। নাহলে আন্দোলন করে নারায়ণগঞ্জ শহর ও সোনারগাঁ অচল করে দেওয়ায় ঘোষণা দিয়েছেন তারা। শুক্রবার (২০ নভেম্বর) সোনারগাঁয়ের পানাম নগরে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

সাংসদ লিয়াকত হোসেনের উপস্থিতিতে ও নির্দেশে সোনারগাঁ জিআর ইনষ্টিটিশন মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রধান ফটক থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনের নামফলক ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ এনে প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম।

বক্তব্য দেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আরজু ভুইয়া, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা মাহফুজুর রহমান কালাম, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, ফারুক ভুইয়া, নুর জাহান, হাজি আলাউদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুব মহিলা লীগের আহবায়ক নুরুন নাহার, আগামী সোনারগাঁ পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে তিন মনোনয়ন প্রত্যাশী গাজী মজিবুর রহমান, ফজলে রাব্বী, নাসরিন সুলতানা, পৌরসভা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তৈয়ব আলী, ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক গাজী আমজাদ হোসেন প্রমূখ।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, লিয়াকত হোসেন খোকা একজন আইন প্রণেতা হয়ে নিজেই আইন হাতে তুলে নিয়ে শপথ ভঙ্গ করেছেন। তিনি ফৌজদারি অপরাধ করেছেন। আমি তোলারাম কলেজের জিএস ছিলাম, এমপি খোকা কোথায় পড়াশোনা করেছেন আমি জানিনা। কোন স্কুল বা কলেজে পড়েছে তা কেউ বলতে পারবেনা। পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছে। যে কারনে তিনি গায়ের জোরে সব কিছু নিয়ন্ত্রন করতে চাইছেন।

জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বলেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেনের নামফলক ভাংগার প্রতিবাদে আগামী রোববার থেকে জেলা পরিষদের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করবে।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম আরাফাত বলেন, আগামী তিন দিনের মধ্যে লিয়াকত হোসেন জাতির কাছে ক্ষমা না চাইলে আন্দোলন করে নারায়ণগঞ্জ শহর ও সোনারগাঁ উপজেলা অচল করে দেওয়া হবে।

সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা মাহফুজুর রহমান কালাম বলেন, নামফলক ভেঙ্গে তিনি গুডামী দেখাতে এসেছেন। আমাদের সাথে গুন্ডামী করতে আসবেন না। সোনারগাঁয়ের রাজনৈতিক গুন্ডা হলাম আমরা। অনেক ধৈয্য ধরেছি আর না। আপনি আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার দয়ায় এমপি হয়েছেন। আর এখন বিএনপি-জামায়াতের ১০ মামলার আসামী নিয়ে জাতীয় পার্টি গঠন করেছেন।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ