শনিবার ২৮ নভেম্বর, ২০২০

খুলনায় হামলার প্রতিবাদে না.গঞ্জে বাম জোটের সমাবেশ

মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ২৩:০২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: বন্ধকৃত রাষ্ট্রীয় পাটকল চালুর দাবিতে আন্দোলনে খুলনায় হামলা ও বাসদ নেতা জনার্দন দত্ত, গণসংহতি আন্দোলনের নেতা ওলিয়ার রহমানসহ ১৪ জনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) বিকের ৪টায় চাষাঢ়া শহীদ মিনারে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ বাসদের সমন্বয়ক নিখিল দাস, নারায়ণগঞ্জ সিপিবির সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী, জেলা গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক তরিকুল সুজন, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি মো. মাহমুদ হোসেন, নারায়ণগঞ্জ সমমনার সভাপতি দুলাল সাহা, জেলা বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সদস্য সচিব আবু হাসান টিপু, জেলা গণসংহতি আন্দোলনের নির্বাহী সমন্বয়ক অঞ্জন দাস, বিপ্লবী নারী মৈত্রীর আহ্বায়ক রাশিদা আক্তার, ট্রেড ইউনিয়ন জেলা কমিটির সদস্য বিমল কান্তি দাস প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, যেখানে সারাদেশ ব্যাপী পাটের বহুবিধ ব্যবহার দেখতে পাচ্ছি। উন্নত দেশগুলো পলিথিন বর্জন করে পাটের দিকে ঝুকঁছে। যেখানে আমাদের দেশে পাটের জিনোম আবিষ্কার হচ্ছে, উন্নত জাতের পাট উৎপাদন হচ্ছে। সেখানে সারাদেশে কর্মসংস্থানের অভাবের মধ্যে অবশিষ্ট ২৫টি পাটকল বন্ধ করার মত আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এই পাটশিল্পের সাথে ৪ কোটি মানুষ সম্প্ক্তৃ রয়েছে। এই পাটকলগুলো বন্ধের মাধ্যমে দেশ থেকে পাটশিল্প বিলুপ্তের পায়তারা করছে সরকার। পাটকল বন্ধের দায় শ্রমিকদের উপর দিলে চলবে না। যদি পাটশিল্প বন্ধ হয় তাহলে পাটমন্ত্রির প্রয়োজনীয়তা কি। সারাদেশে ঘটমান দূর্নীতি, লুটপাটের বিরুদ্ধে সরকার কোন কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারছেনা । কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের চেতনার নামে পিপিপির মাধ্যমে অবশিষ্ট পাটকলগুলো বন্ধ করে দিয়েছে এই সরকার। গতকাল সোমবার (১৯ অক্টোবর) খুলনায় পাটকল শ্রমিকদের উপর পুলিশ ভয়াবহ হামলা চালাই। কলোণির মধ্যে ঢুকে নারী শিশুর উপর পুলিশ ভয়ংকর অত্যাচার চালাই। এ আন্দোলনে সরকারের অকার্যকর গণতন্ত্র হিসেবে পুলিশ ভূমিকা রেখেছে।

বক্তারা আরো বলেন, গত শনিবার (১৭ অক্টোবর) ছাত্ররা যখন লংমার্চে যায় তখন তাদের উপর প্রশাসনের সাহায্যে সরকারী গুন্ডা বাহিনী দিয়ে হামলা চালানো হয়। জনগণের পরিশ্রমের টাকায় প্রশাসনকে বেতন দেওয়া হয়। অথচ এই আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে সরকার জনগণের বিরুদ্ধে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। নির্যাতন নিপীড়ন করে ন্যায় সঙ্গত আন্দোলন থামিয়ে দেওয়া যায়ং না। আমরা এ আন্দোলনগুলোর বিরুদ্ধে সরকারের আক্রমণমূখী আচরণ দেখতে পাই। প্রজাতন্ত্রের সরকার কখনো জনগণের উপর নির্লজ্জভাবে হামলা চালাতে পারে না। এ সময় হামলাকারীদের বিচার ও গ্রেফতারকৃতদের অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি চান নেতৃবৃন্দ।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ