শুক্রবার ২৩ অক্টোবর, ২০২০

ধর্ষকের পৃষ্টপোষকদের আইনের আওতায় আনতে হবে: রফিউর রাব্বি

শনিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৫৫

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড ও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটি। শনিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এই ধর্ষণবিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি বলেন, সারাদেশে যে ধর্ষণের প্রতিবাদ সংঘঠিত হয়েছে তা প্রশমিত করার জন্য সরকার মৃত্যুদন্ডের আইন ঘোষণা করেছে। যদি এই ধর্ষণের প্রকৃত কারণ উদঘাটন করে এর ব্যবস্থা করা না যায় তাহলে মৃত্যুদন্ড এক বার কেন যদি পাঁচ বারও মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয় এই ধর্ষণ বন্ধ হবে না।

তিনি বলেন, সরকার বলছে ধর্ষণ যত প্রচার হবে তত বৃদ্ধি পাবে। একদিকে সরকার বলছে প্রচার, প্রতিবাদ হলে এ ঘটনা বাড়বে, প্রচারের প্রয়োজন নাই। অন্যদিকে সরকার দলের লোকজন ও প্রশাসন বিভিন্ন ধর্ষণ বিরোধী প্রতিবাদ করছে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ধর্ষণ করে সেঞ্চুরী পালন করে কিন্তু তাকে আইনের আওতায় আসতে হয় নাই। শাস্তি হিসেবে তাকে শুধুমাত্র বহিষ্কার করা হয়।

রফিউর রাব্বি বলেন, গতকাল কক্সবাজারে এক ১৫ বছরের কিশোরীকে অপহরণ করে নিয়ে যায় এবং তাকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। গত কয়েকদিন আগে আমাদের রুপগঞ্জে একজন স্বামী হারা নারীকে তিন ঘন্টায় তিনবার ধর্ষণ করা হয়েছে। সারাদেশে যে নৃশংস ঘটনাগুলো ঘটছে তারই প্রেক্ষিতে সারাদেশে প্রতিবাদও হচ্ছে। ফলে জনগণের চলমান ও বিদ্যমান ক্ষোভকে প্রশমিত করার জন্য সরকার এই মৃত্যুদন্ডের আইন করতে বাধ্য হয়েছে। দীর্ঘ ১২ বছরে কতটি মামলা নিষ্পন্ন হয়েছে, কয়জন ধর্ষক শাস্তি পেয়েছে তা দেখে আমরা এর আলামত বুঝতে পারবো। আমাদের ধর্ষণ আইনে স্পষ্ঠ আছে ১৮০ দিনের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তি করত হবে। তাহলে কেন মামলা নিষ্পত্তি হতে ২ বছর, ৮ বছর কি ১২ বছর লাগে। কিন্তু যতদিন না পর্যন্ত এই ধর্ষকদের পৃষ্টপোষকদের আইনের আওতায় আনা হচ্ছে, যে সকল পুলিশ বাহিনি এই মামলাকে দূর্বল করার জন্য থানাতেই ব্যবস্থা গ্রহণ করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে ততদিন ধর্ষণ কমবে না। যদি বিশেষ ট্রাইব্যুনালে দ্রুত সময়ে মামলা নিষ্পন্ন করা হয় তাহলেই ধর্ষণের সংখ্যা কমানো সম্ভব।

নারয়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এ বি সিদ্দিকের সভাপতিত্বে ও জহিরুল হক মিন্টুর সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন সিপিবি জেলা সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী, আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন মন্টু, গণসংহতি আন্দোলনের জেলা সমন্বয়কারী তরিকুল সুজন, বাসদের নেতা আবু নাঈম খান বিপ্লব, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শাহিন মাহমুদ, শ্রুতি সাংস্কৃতিক একাডেমীর পরিচালক ধীমান সাহা জুয়েল, সমমনার সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন, আয়কর উপদেষ্টা অজয় কিশোর মোদক, নাগরিক কমিটির কোষাধ্যক্ষ আব্দুল হাই, সদস্য লোকমান হোসেন, তারিক বাবু, মরিয়ম কল্পনা প্রমুখ।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ