সোমবার ২১ জুন, ২০২১

নারায়ণগঞ্জে ৬ টি মডেল মসজিদ নির্মাণে নেই অগ্রগতি

বৃহস্পতিবার, ১০ জুন ২০২১, ১৯:২২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: মুজিববর্ষে জনগণের জন্য উপহার হিসেবে ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার। বৃহস্পতিবার একযোগে ৫০টি মসজিদ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে এই প্রকল্পের আওতায় নারায়ণগঞ্জ জেলার ছয়টি মসজিদের নির্মাণকাজের দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি নেই। জেলায় নির্মিতব্য ছয়টি মডেল মসজিদের মধ্যে তিনটির কাজ চলছে আর বাকি তিনটির কাজই শুরু হয়নি। তবে এজন্য কাঙ্ক্ষিত জমি না পাওয়া, জমি অধিগ্রহণে বিলম্ব, জমি নিয়ে মামলা জটিলতা, বরাদ্দকৃত অর্থ ছাড় নিয়মিত না পাওয়ার মতো বিষয়গুলো সামনে আনছেন প্রকল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট সরকারি দপ্তরগুলো।

২০১৭ সালে জেলা, উপজেলা ও উপকূলীয় এলাকায় মডেল মসজিদ নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয় সরকার। নারায়ণগঞ্জ জেলা ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও গণপূর্ত অধিদপ্তর থেকে পাওয়া তথ্যমতে, জেলার সোনারগাঁ, আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে তিনতলা বিশিষ্ট মডেল মসজিদ নির্মাণকাজ চলমান রয়েছে। ২০১৯ সালের এপ্রিলে দরপত্রের মাধ্যমে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনুমতিপত্র (ওয়ার্ক অর্ডার) দেওয়া হলেও দুই বছরে তিন উপজেলায় গড়ে ১৬ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বন্দর ও সদর উপজেলার জমি নির্ধারণের কাজ এখনও চলমান রয়েছে। অন্যদিকে চারতলা বিশিষ্ট জেলা মডেল মসজিদটির জন্য ওয়াকফ সম্পত্তির জমি প্রদানে অনাপত্তি দেওয়ার পরও মামলা করায় আটকে আছে সেটিরও কাজ। অথচ এই মসজিদের নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তরও করা হয়েছিল। ভিত্তিপ্রস্তর করার কয়েকদিন পরই মামলার কারণে আটকে যায় নির্মাণ কার্যক্রম।

কয়েক দফা আলোচনার পর গত বছরের ১৩ ফেব্রুয়ারি মীর শরীয়ত উল্লাহ (মন্ডলপাড়া জামে মসজিদ) ওয়াক্ফ সম্পত্তির ৪৩ শতাংশ জমি প্রদানে অনাপত্তি দিয়েছিল মন্ডলপাড়া জামে মসজিদ কমপ্লেক্স পরিচালনা কমিটি। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত এলাকা হওয়াতে সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সহায়তায় মসজিদ নির্মাণকাজ বাস্তবায়নে কাজও শুরু করে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও গণপূর্ত অধিদপ্তর। গত ১২ জানুয়ারি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক আনিস মাহমুদ ও নারায়ণগঞ্জ গণপূর্ত অধিদপ্তর সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসাইনের উপস্থিতিতে মসজিদ নির্মাণকাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন মেয়র আইভী। অনাপত্তি দেওয়ার পরও গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ওই জায়গায় স্থাপনা নির্মাণে চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আদালতে মামলা করেছেন মন্ডলপাড়া জামে মসজিদ কমপ্লেক্স পরিচালনা কমিটির মোতাওয়াল্লি সাখাওয়াত উদ্দিন আহমেদ। স্থানীয় এলাকাবাসী ও সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর অভিযোগ, স্থানীয় রাজনীতিতে সুবিধা নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার এই প্রকল্পে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে গণপূর্ত অধিদপ্তর বলছে, এই মসজিদের জন্য তিনবার দরপত্র আহ্বান করা হয়। ঠিকদারি প্রতিষ্ঠান সঠিক তথ্য ও কাগজপত্র জমা না দেওয়ায় দুইবারই দরপত্র বাতিল হয়ে যায়। তৃতীয়বার ডাকা দরপত্রেরও কার্যক্রম প্রায় সম্পন্ন হয়ে গেছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন জমি বুঝিয়ে দিলেই জেলা মডেল মসজিদের নির্মাণকাজ শুরু হবে।

নারায়ণগঞ্জ গণপূর্ত অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী হেলাল উদ্দিন বলেন, তিন উপজেলায় তিনটি মসজিদের নির্মাণ কাজ চলছে। আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জ উপজেলায় ১৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। গ্রেড বিম ঢালাই সম্পন্ন হয়েছে দু’টো স্থাপনারই। সোনারগাঁয়ের কলাম ঢালাইও সম্পন্ন হয়ে গেছে। এটির ১৮ শতাংশ কাজ হয়েছে। ছাদ ঢালাইয়ের জন্য প্রস্তুতি চলছে। নিয়মিত বরাদ্দ না পাওয়া এবং কোভিড পরিস্থিতির কারণে নির্মাণকাজ কিছু ধীর হচ্ছে। বাকি তিনটি মসজিদের জন্য জমি নির্ধারণ করে কাগজপত্র ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে তাদের হস্তান্তর করা হলেই দরপত্রের মাধ্যমে নির্মাণকাজ শুরুর অনুমতিপত্র দিতে পারবেন বলে জানান গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী।

তবে এ বিষয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উপপরিচালক জাকির হোসাইন বলেন, বন্দর ও সদর উপজেলার জায়গা নিয়ে কিছু কাজ রয়েছে। এছাড়া জেলার জায়গা নির্ধারণ হয়ে গেলেও মামলার কারণে সে কাজ বন্ধ। দ্রুতই এইসব সমস্যার সমাধান করে নির্মাণকাজ শুরু হবে।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ