মঙ্গলবার ২৬ জানুয়ারি, ২০২১

নারায়ণগঞ্জে ছাত্র মৈত্রীর সম্মেলন, নতুন কমিটি ঘোষণা

শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১৯:১৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির ছাত্র সংগঠন ছাত্র মৈত্রীর নারায়ণগঞ্জ জেলার নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) বিকেলে পঞ্চম জেলা কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। কাউন্সিলে ৩১ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। নতুন কমিটিতে জেসমিন আক্তার সভাপতি ও এইচএম আব্দুল্লাহ শাওন সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

শহরের আলী আহাম্মদ চুনকা নগর পাঠাগার ও মিলনায়তনের এক্সপেরিমেন্টাল হলে কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় সংগীতের সাথে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছাত্র মৈত্রীর কেন্দ্রীয় সভাপতি ফারুক হোসেন রুবেল। আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্র মৈত্রী ঢাকা মহানগরের সভাপতি ইয়াতুন্নেছা রুমা, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি হাফিজুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক হিমাংশু সাহা, সাবেক ছাত্রনেতা মাইনুদ্দীন বারী, হাবীব সিদ্দিকী, গোলাম মোস্তফা সাচ্, শ্রমিক নেতা জাহাঙ্গীর আলম গোলক প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ছাত্রনেতা শরীফ রায়হান।

এ সময় বক্তারা বলেন, রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধে লাখো প্রাণের আত্মত্যাগের মধ্য দিয়ে এদেশ স্বাধীন হয়েছে। স্বাধীনতাযুদ্ধের চেতনা ছিল ক্ষুধামুক্ত, বেকারত্বহীন, শতভাগ শিক্ষিত একটি রাষ্ট্রের। কিন্তু স্বাধীনতার এতগুলো বছর পেরিয়ে যাওয়ার পরও সেই চাহিদাগুলো পূরণ হয়েছে কিনা সেটা ভাবনার বিষয়। লুটেরার রাজনীতি কায়েম করার জন্য এই দেশ স্বাধীন হয়নি। শিক্ষাখাতকে এখন ব্যবসায় পরিণত করা হয়েছে। কোচিং বাণিজ্য, ভর্তি বাণিজ্য সব মিলিয়ে শিক্ষা এখন কেবলই পণ্য।

সাবেক ছাত্রনেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দীর্ঘদিন যাবত একটা গণতান্ত্রিক শিক্ষানীতির দাবি জানানো হচ্ছে। কিন্তু তার বাস্তবায়ন আজও হচ্ছে না। করোনা সংকটে শিক্ষাব্যবস্থার দৈন্যতা সামনে এসেছে। অনলাইনের যে শিক্ষা কার্যক্রম চালু রয়েছে তা প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে পৌছাচ্ছে না। শিক্ষা সেই উচ্চবিত্ত শ্রেণির হাতের মুঠোতেই বন্দি হয়ে গেছে। শিক্ষাকে এখনও রাষ্ট্রীয়ভাবে গ্রহণ করা হচ্ছে না। লুটেরা নয় গণমুখী শিক্ষা চায় সাধারণ মানুষ। সারাদেশের সবকটি জেলায় একটি করে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবি জানান নেতারা।

বক্তব্য শেষে ১৪টি পদ শূণ্য রেখে ছাত্র মৈত্রী নারায়ণগঞ্জ জেলার ৩১ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। শূণ্য পদ শীঘ্রই সম্পূর্ণ করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কমিটিতে সভাপতি জেসমিন আক্তার, সহসভাপতি রায়হান শরীফ ও শাহীন খন্দকার, সাধারণ সম্পাদক এইচএম আবদুল্লাহ শাওন, সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রায়হান খান, অর্থ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, সাহত্যি, সংস্কৃতি ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমেনা বেগম, দপ্তর সম্পাদক মো. রাফি, স্কুল বিষয়ক সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস। সদস্য হিসেবে আছেন রেশমা আক্তার, মো. উৎস, মো. রাহাত, ইকরা মনি, নাবিলঅ আক্তার, মেহেদী হাসান, শারমিন আক্তার।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ