সোমবার ২৬ জুলাই, ২০২১

‘পাবজি’ খেলে আয় করছেন নারায়ণগঞ্জের রাহাত

সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ২২:২২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ছেলে আমিনুল রাহাত। অনলাইন গেম ‘পাবজি’ খেলে আয় করছেন তিনি। পেশাদার এই পাবজি খেলোয়াড় আন্তর্জাতিকভাবে পরিচিতি পেয়েছেন। আন্তর্জাতিক স্পন্সরও রয়েছে তার। মোবাইল গেমিং আমিনুলকে সবাই ‘কাপসি’ (Kapshi) নামে চেনে।

বাংলাদেশে মোবাইল গেম ‘পাবজি’ বেশ জনপ্রিয়। এই গেমের কারণে অনেক পরিবার তাদের সন্তানদের নিয়ে চিন্তিত। অভিভাবকদের অভিযোগ, গেমিংয়ে আসক্তি হয়ে যাওয়ায় লেখাপড়ার দিকে মনোযোগ হারাচ্ছে সন্তানরা। দেশে ‘পাবজি’ গেম নিষিদ্ধ করার দাবিতেও সরব রয়েছেন কেউ কেউ। এমন অবস্থায় নারায়ণগঞ্জের আমিনুল রাহাত দেখাচ্ছেন ভিন্ন পথ। মোবাইল গেমিং জগতে দেশের গন্ডি পেরিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশকে চেনানো দলটির অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। বর্তমানে খেলছেন বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ও জনপ্রিয় পাবজি দল গ্রেমলিন স্টোর্ম (জিএসএম) ই-স্পোর্টসে। আমিনুল জানায়, তার দলের স্পন্সরও রয়েছে।

প্রথমে এক বড় ভাইয়ের দেখাদেখি অনলাইন গেম খেলা শুরু করে। এক সময়ের জনপ্রিয় ‘ক্লাশ অব ক্লানস’ গেম অনেক খেলেছেন তিনি। প্রথমে শখের বসে খেললেও অনলাইন গেমসের টুর্নামেন্টগুলোর খবর রাখতেন আমিনুল। তখন টুর্নামেন্টে না খেললেও এখন ‘পাবজি’তে টুর্নামেন্টগুলোতে অংশ নেন তিনি। গত তিনবছর যাবৎ তিনি ‘পাবজি’ খেলছেন বলে জানান।

কাপসির দল জিএসএম এতোদিন ভারতীয় ই-স্পোর্টস প্রতিষ্ঠান ফিউচার স্টেশন থেকে স্পন্সরপ্রাপ্ত ছিল। কিন্তু সম্প্রতি তাদের সঙ্গে গ্রেমলিন স্টোর্মের চুক্তি শেষ হয়েছে। এবার তারা যুক্ত হয়েছেন আরেক ভারতীয় প্রতিষ্ঠান ‘সেভন সি’ এর সঙ্গে। কিশোর আমিনুল বলেন, স্পন্সর থেকে মাসিক একটি বেতন আসে। তাছাড়া গেমটি যেহেতু অনলাইনে খেলা হয় সেহেতু তারা আমাদের ভালো ইন্টারনেট সংযোগের ব্যবস্থা করে দেয়। খেলার জন্য ভালো ডিভাইস, হেডফোনের ব্যবস্থা করে তারা। কোনো অফিসিয়াল টুর্নামেন্ট হলে যাতায়াত, থাকা-খাওয়া সব কিছু বহন করবে স্পন্সর। তাছাড়া কোচ এবং ব্যবস্থাপনার জন্য আলাদা টিম থাকে। খেলার মান বৃদ্ধিতে তারা সহযোগিতা করে। উত্তর আমেরিকান অঞ্চলে মধ্যম ক্যাটাগরির একজন মোবাইল গেমার ৮০ থেকে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত মাসিক বেতন পেতে পারেন। এমনটা বাংলাদেশে থেকেও হতে পারে বলে মত আমিনুলের।

সব খবর
পজিটিভ নারায়ণগঞ্জ বিভাগের সর্বশেষ