মঙ্গলবার ০৯ মার্চ, ২০২১

ফতুল্লা আওয়ামী লীগের পরিচিতি সভা, ছিলেন না শামীম-লিপি-অয়ন

বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ২১:২৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সাইফউল্লাহ বাদলকে সভাপতি ও শওকত আলীকে সাধারণ সম্পাদক করে গত ১০ জানুয়ারি ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল। কমিটি ঘোষণার ১০ দিন পর নতুন ঘোষিত কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিন্তু সভায় উপস্থিত ছিলেন না ঘোষিত কমিটির আলোচিত তিন সদস্য একেএম শামীম ওসমান, সালমা ওসমান লিপি ও ইমতিনান ওসমান অয়ন। যদিও কমিটি ঘোষণার তিন দিন পর প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান এই তিন পদে ওসমান পরিবারের তিন সদস্যের পরিবর্তে তৃণমূলের ত্যাগী নেতাদের সুযোগ করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর চিঠি দিয়েছিলেন।

বুধবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে ফতুল্লা স্টেডিয়াম সংলগ্ন নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল পার্কে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শামীম ওসমান ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের পরিবর্তে তৃণমূলের ত্যাগী নেতাদের সুযোগ করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে চিঠি দিলেও এখনো পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী। তিনি বলেন ’ ‘আমরা চাই এমপি সাহেবসহ তারা তিনজনই কমিটিতে থাকবেন৷ কিন্তু এমপি সাহেব নিজেই চিঠি দিয়েছেন তাদের পদে অন্য কাউকে সুযোগ দেয়ার জন্য৷ এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি৷’

সাংসদ শামীম ওসমান আওয়ামী লীগের মনোনয়নে তিনবারের নির্বাচিত সাংসদ হলেও তার স্ত্রী সালমা ওসমান লিপি ও একমাত্র ছেলে ইমতিনান ওসমান অয়ন সরাসরি দলের কোনো পদ-পদবীতে ছিলেন না। তবে গত ১০ জানুয়ারি ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে কার্যকরী সদস্যের পদ পান তারা। থানা আওয়ামী লীগের কার্যকরী পদে সাংসদের স্ত্রী-সন্তানের নাম আসার পর এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়।

সাংসদ শামীম ওসমানের স্ত্রী সালমা ওসমান লিপি নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান। একাদশ সংসদ নির্বাচনে স্বামীর পাশাপাশি থেকে আবার একক ভাবেও শামীম ওসমানের নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন তিনি। তবে সাংসদ পুত্র ইমতিনান ওসমান অয়ন এর পূর্বে কোনো সংগঠনের পদে না থাকলেও ছাত্রলীগের নেপথ্যে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। কমিটিতে আসার মাধ্যমে সরাসরি আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে অভিষেক ঘটে মা ও ছেলের। কমিটিতে তাদের পরিবর্তে অন্যদের সুযোগ করে দেয়ার প্রস্তাব দিলেও আনুষ্ঠানিক ভাবে পদত্যাগ কিংবা তাদের প্রস্তাবে এখনো সিদ্ধান্ত না নেয়ায় পরিচিতি সভায় তাদের উপস্থিতি প্রত্যাশা করেছিলেন আওয়ামী লীগের নেতারা।

পরিচিতি সভায় ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলীর পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই এবং প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোহাম্মদ বাদল।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শাহ্ নিজাম, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়া সাজনু। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান, ওয়ালী মাহমুদ খান, একে এম শহিদুল ইসলাম, খন্দকার লুৎফর রহমান স্বপন, গিয়াস উদ্দিন, আশরাফুল আলম, আব্দুল হাকিম চৌধুরী, মঞ্জুরুল ইসলাম, মোস্তফা কামাল, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ইসহাক প্রমুখ।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ