মঙ্গলবার ০২ মার্চ, ২০২১

বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের প্রতি গিয়াসউদ্দিনের পরামর্শ

মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ২৩:১৮

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: বিএনপি পন্থী আইনজীবীদের ভয়ভীতি উপেক্ষা করে ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে শেষ পর্যন্ত লড়াই করে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন।

লক্ষ্যে অভীষ্ট থেকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করলে জয় সুনিশ্চিত মন্তব্য করে মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন বলেন, আইনজীবীদের নির্বাচনটি হচ্ছে সর্বোচ্চ শিক্ষিত ব্যক্তিদের। এখানে শান্তি, শৃঙ্খলা, নিয়ম নীতি বহাল থাকবে। এমনটাই প্রত্যাশা করি। আইনজীবীদের নির্বাচনী প্রক্রিয়াগুলোই দেশের গণতন্ত্র চর্চার ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখবে। আইনজীবীদের নির্বাচনই অনুকরণীয় হবে অন্যদের কাছে। কিন্তু গত কয়েক বছর আমরা যা দেখলাম তা অত্যন্ত দুঃখের এবং পরিতাপের। অগণতান্ত্রিক আচরণে ভোটাধিকার হরণ করে ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য চোরাগলির আশ্রয় নিতে হচ্ছে কিছু মানুষকে। শিক্ষিত শ্রেণির নির্বাচনে এমনটা কখনই কাম্য নয়।

নিজেকে একজন সাধারণ নাগরিক এবং একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে উল্লেখ করে গিয়াসউদ্দিন আরও বলেন, ভোটের, ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য মৃত্যু ভয় করে যুদ্ধে গিয়েছিলাম আমরা। একটি স্বাধীন, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠাই ছিলো লক্ষ্য। অগণতান্ত্রিক আচরণের শৃঙ্খল থেকে বের হতেই আমরা অস্ত্র হাতে তুলে নিয়েছিলাম। অথচ আমাদের সেই গণতন্ত্র, ভোটের অধিকারই হরণ হয়ে যাচ্ছে। এর থেকে আমাদের সকলকে ফিরে আসতে হবে। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের মাধ্যমে যোগ্য প্রতিনিধি খুঁজে নিতে সাধারণ ভোটারদের সুযোগ করে দিতে হবে।

আইনজীবী সমিতির সাধারণ ভোটারদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, আপনারা শিক্ষিত শ্রেণি। আইন পেশায় নিয়োজিত আছেন। সকল ভয়কে উপেক্ষা করেই পেশাগত দায়িত্ব পালন করছেন। অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্যও আপনারা লড়েন। সেই লড়াইয়ের মতো করে আপনি আপনার ভোটাধিকারের জন্যও লড়াইটা করুন। যাকে আপনি যোগ্য মনে করবেন তাকেই ভোট দিন। অন্তত আপনার ভোটাধিকার যেন হরণ না হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখুন, সোচ্চার হোন নিজের অধিকার সম্পর্কে।

আওয়ামী লীগ পন্থী আইনজীবী প্যানেলের উদ্দেশ্যে গিয়াস উদ্দিন বলেন, আদালতে আমরা দেখি, পেশাগত দায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে এজলাসে দাঁড়িয়ে পক্ষে বিপক্ষে তুমুলভাবে বিরোধীতায় জড়িয়ে পড়েন আপনারা। কিন্তু এজলাসের বাইরে সেই আপনাদেরই দেখি সহাবস্থান, একজন আরেকজনের প্রতি সোহার্দ্যপূর্ণ আচরণ করছেন। এটাইতো গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। তাহলে নির্বাচনে কেন এই সৌন্দর্যটা বহাল রাখতে পারেন না! আপনারা হয়তো জোর করে, কারচুপি করে নির্বাচিত হতে পারবেন কিন্তু এতে করে আপনি কী আত্মতুষ্ট হবেন! নিজের বিবেকের কাছেইতো আপনি প্রতিমুহূর্তে প্রশ্নবিদ্ধ হবেন। আমরাতো জানি, প্রতিটি মানুষের বিবেকই হচ্ছে সর্বশ্রেষ্ঠ আদালত। একবার আপনি সেই আদালতের মুখোমুখি হোন এবং দেখুন সেই আদালত কী রায় দেয়।

সকল আইনজীবী মিলে সুন্দর, সুষ্ঠু একটি নির্বাচন উপহার দিবে এবং সাধারণ আইনজীবীদের ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে যোগ্য প্রতিনিধি নির্বাচন করার সুযোগ সৃষ্টি করে অনন্য এক নজির স্থাপন করবেন আইনজীবীরা এমন প্রত্যাশাই করেন সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ