শুক্রবার ২২ অক্টোবর, ২০২১

সেন্টুর নৌকার মনোনয়ন বাতিলের সম্ভবনা

মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সদর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদে বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা মনিরুল আলম সেন্টু পেয়েছেন নৌকার মনোনয়ন৷ তবে তার মনোনয়ন বাতিল হতে পারে৷ এমন সম্ভবনার কথা জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই৷

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানা বিএনপির সহসভাপতি ছিলেন কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু। গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় ২০১৮ সালের ২৪ ডিসেম্বর দল থেকে তাকে বহিষ্কার করে বিএনপি। বিএনপির বহিষ্কৃত এই নেতাই এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন৷ একক প্রার্থী হিসেবে তার নামই কেন্দ্রে পাঠিয়েছিল স্থানীয় আওয়ামী লীগ। এ নিয়ে আওয়ামী লীগের তৃণমূলে ব্যাপক ক্ষোভ রয়েছে৷

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী সাংসদ শামীম ওসমানের সংসদীয় এলাকায় বিএনপির সাবেক নেতাকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়ার সুপারিশ করায় নেতাদের উপর চরম ক্ষোভ রয়েছে তৃণমূলের। তবে এই ক্ষোভ প্রকাশের সুযোগ বা সাহস নেই তাদের। স্থানীয় সূত্র বলছে, সাবেক বিএনপি নেতা মনিরুল আলম সেন্টুর উপর নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আওয়ামী লীগের সাংসদ একেএম শামীম ওসমানের আশীর্বাদ রয়েছে।

বিএনপির রাজনীতির সাথে যুক্ত থাকলেও বরাবরই শামীম ওসমানকে নেতা মেনেছেন সেন্টু। গত সংসদ নির্বাচনের পূর্বে শামীম ওসমানের কর্মীসভাতেও তার সরব উপস্থিতি ছিল। অভিযোগ রয়েছে, সাংসদের আশীর্বাদপুষ্ট বিএনপি নেতাকে জেতাতেই গত নির্বাচনগুলোতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে বিসর্জন দেওয়া হয়েছে। আওয়ামী লীগ হটিয়ে বিএনপির প্রার্থীকে সুযোগ দেওয়ার এই কার্যক্রম বিগত নির্বাচনগুলোতে গোপনে হলেও এবার তা হচ্ছে প্রকাশ্যে৷

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের বঞ্চিত করে বিএনপি নেতাকে আওয়ামী লীগের নৌকা দেওয়া হয়েছে৷ কেননা কুতুবপুরে এবার মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম রসুল শিকদার, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মোস্তফা কামাল, সদস্য শাহ্ আলম গাজী টেনুসহ অনেকেই।

এদিকে আওয়ামী লীগের একটি সূত্র বলছে, বিএনপি নেতাকে নৌকার মনোনয়ন দেয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে তা নজরে আসে কেন্দ্রের৷ তারা বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা সেন্টুর মনোনয়ন বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের কথা জানায়নি কেন্দ্র৷ তবে তার মনোয়ন বাতিল হবার সম্ভবনা রয়েছে৷

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আরও বলেন, ‘সেন্টুর বিরুদ্ধে নাশকতার মামলা রয়েছে৷ সে বিএনপির পদধারী নেতা ছিল৷ গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সে নৌকার মনোনয়ন পেতে পারে না৷ তার মনোনয়ন বাতিল হওয়াই উচিত৷’

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ