রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

শত বাধা পেরিয়ে ঘরমুখো মানুষ

সোমবার, ১৯ জুলাই ২০২১, ২১:১৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের জন্য অন্যতম উৎসব ঈদুল আযহার বাকি মাত্র এক দিন। নগরীর কর্ম-ব্যস্ততাকে ছুটি দিয়ে এবার বাড়ি ফেরার পালা। ঈদে ঘরে ফেরার তাড়নায় নগরীতে স্পষ্ট লক্ষ্যনীয়। শত ভোগান্তি নিয়ে হলেও বাড়ি ফিরতে হবে। ঘরমুখো এই মানুষের চাপে নগরীর সড়কগুলো এখন যানজটময়। অনেকেই পাচ্ছেন কাক্সিক্ষত যানবাহন।

সোমবার (১৯ জুলাই) বিকেল থেকে নগরীর প্রাণকেন্দ্র চাষাড়ায় বাড়তে থাকে বাড়ি ফেরা মানুষের চাপ। যাতে সৃষ্টি হচ্ছে যানজটের। থেকে থেকে এই যানজট চলছে দীর্ঘক্ষণ। সরেজিমনে চাষাড়া রাইফেল ক্লাব, আর্মি মার্কেট, মহিলা কলেজের সামনে গিয়ে দেখা যায়, বৃষ্টি উপেক্ষা করেই ঘরমুখো মানুষ সাইনবোর্ড ও ফতুল্লা লঞ্চ ঘাটে যাওয়ার জন্যে সিএনজি, ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও লেগুনাগুলোর জন্যে জড়ো হচ্ছেন স্ট্যান্ডগুলোতে। যাত্রী বোঝাই করে নিলেও তা পর্যাপ্ত হচ্ছে না যাত্রীদের জন্যে। অন্য রুটের সিএনজি, ব্যাটারিচালিত ইজিবাইকগুলোও আসলে তা পর্যাপ্ত হচ্ছে না যাত্রীদের জন্য।

কেউ কেউ বিকল্প হিসেবে ছুটছেন ঢাকার সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালের উদ্দেশ্যে। যাতে ভিড় জমছে ঢাকাগামী বাসের টিকেট কাউন্টারগুলোতে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চলাচলের কথাও বললেও সে নির্দেশনা মানার বালাই নেই বললেই চলে। কাউন্টার থেকে বলার পরও বাসের দাড়িয়ে যাচ্ছেন তারা। অনেকে আবার বৃষ্টি মাথায় করে হেটে চলেছেন গন্তব্যের উদ্দেশ্যে। অতিরিক্ত এই যাত্রীর চাপের জন্যে পুরতান ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট।

রংপুরের যাত্রী পাভেল বলেন, এখানকার যা বাস আছে সব রাতের। তাই সাইনবোর্ড যাাচ্ছি। কিন্তু আধা ঘন্টার উপরে দাড়িয়ে আছি সিএনজি, অটো কিছুই পাচ্ছি না। যাকেই জিজ্ঞেস করি সব রিজার্ভ নিয়ে চলে যাচ্ছে। বাসগুলোও খালি না।

চট্টগ্রামের যাত্রী কাউসার জানান, ছুটি পেলাম আজকে। আর এ সময়ে অনেক ভোগান্তি হয়, তাই আগে-ভাগে বউ আর ছেলেকে পাঠিয়ে দিয়েছি। সাইনবোর্ড পর্যন্ত যাওয়ার জন্যে দাড়িয়ে আছি। ওখানে গিয়ে যেকোনো একটা বাসে উঠতে পারলেই চলে। ১৫ মিনিট হবে দাড়িয়েছি কিন্তু এখন পর্যন্ত কিছু পাইনি যাওয়ার জন্যে।

বরিশালের যাত্রী বিপুল জানান, ফতুল্লা লঞ্চঘাটে যাবো। কিন্তু বাস-সিএনজি কিছুই পাচ্ছি না। তাই হেটে যাচ্ছি।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ