২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত: ২১:০২, ৩০ নভেম্বর ২০২৩

সোনারগাঁয়ে টেঁটা নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১২

সোনারগাঁয়ে টেঁটা নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১২

নির্বাচনকেন্দ্রিক বাগবিতণ্ডা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা নদী চরাঞ্চল বারদী নুনেরটেক এলাকায় দুই গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) সকালে এ সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের টেঁটাবিদ্ধসহ কমপক্ষে ১২ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে পুরো নুনেরটেক এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ওই এলাকায় পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বারদী ইউনিয়নের নুনেরটেক এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত ইউপি সদস্য ওসমান গণি ও পরাজিত প্রার্থী শুক্কুর মাহমুদের মধ্যে নির্বাচন নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। বুধবার রাতে আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে সাবেক সংসদ সদস্য ও সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল কায়সারের নৌকার মনোনয়ন পাওয়া নিয়ে ইউপি সদস্য ওসমান গণির ছেলে মেহেদী হাসান ও জাকারিয়ার সঙ্গে শুক্কুর মাহমুদের সমর্থক বাবুল মিয়ার কথা কাটাকাটি ও তর্কবিতর্ক হয়।

এর জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উভয় গ্রুপের লোকজন টেঁটা, বল্লম, রামদা, হকিস্টিক, লোহার রড ও চাপাতিসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষে ইউপি সদস্য ওসমান গণি গ্রুপের রমিজউদ্দিন, মোসলেউদ্দিন, চাঁন বাদশা, বাহাউদ্দিন, স্বপন, মোক্তার, মেহেদী ও শুক্কুর মাহমুদের পক্ষের কামরুল ইসলাম, ওমর আলী, আব্দুল হক, হামিদ আলী, দেলোয়ার হোসেন টেঁটাবিদ্ধসহ ১২ জন মারাত্মকভাবে আহত হন। খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বারদী ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান সদস্য ওসমান গণি জানান, বুধবার রাতে তার নাতি নৌকা প্রতীকের পক্ষে স্লোগান দেওয়ায় শুক্কুর মাহমুদের লোকজন তাকে মারধর করে। এরই প্রতিবাদ করায় সকালে শুক্কুর মাহমুদ, সোলায়মান ও সামসুদ্দিনের নেতৃত্বে অর্ধশত লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র টেঁটা, রামদা নিয়ে তাদের লোকজনদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় তার গ্রুপের ৭ জন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে মোসলে উদ্দিন ও চাঁন বাদশার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এ ব্যাপারে শুক্কুর মাহমুদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সোনারগাঁ আসনে এবার আবদুল্লাহ আল কায়সার নৌকার মনোনয়ন পেয়েছেন। এ নিয়ে মন্তব্য করায় তর্ক-বিতর্ক হয়। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার সকালে উভয় গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে তার গ্রুপের টেঁটাবিদ্ধসহ কমপক্ষে ৮ জন আহত হয়েছেন।

সোনারগাঁ থানার ওসি মাহাবুব আলম সুমন জানান, দুগ্রুপের সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে তাৎক্ষণিক পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ওই এলাকায় পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়