১৬ জুন ২০২৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত: ২০:১৭, ১৯ মে ২০২৪

সোনারগাঁয়ে আনারসে ভোট না দিলে ‘কেন্দ্রে না আসার’ হুমকি 

সোনারগাঁয়ে আনারসে ভোট না দিলে ‘কেন্দ্রে না আসার’ হুমকি 

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী বাবুল হোসেনের এক সমর্থকের বিরুদ্ধে ভোটারদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ করেছেন ঘোড়া প্রতীকের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মাহফুজুর রহমান কালাম। গত শনিবার তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্বপ্রাপ্ত অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক সাকিব আল রাব্বির কাছে লিখিত অভিযোগ দেন।

এদিকে, ভোটারদের হুমকি দেওয়ার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের চরকিশোরগঞ্জ এলাকায় বাবুল হোসেনের একটি নির্বাচনী উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই অনুষ্ঠানে প্রার্থী নিজে উপস্থিত ছিলেন। তার উপস্থিতিতে মাইকে বক্তব্য দেওয়ার সময় স্থানীয় যুবক রাসেল উদ্দিনকে নির্দিষ্ট প্রতীকে ভোট না দিলে কেন্দ্রে না আসতে ভোটারদের হুমকি দিতে শোনা যায়।

ভিডিওতে রাসেল উদ্দিনকে বলতে শোনা যায়, ‘এখানে (চরকিশোরগঞ্জে) আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে একজনই। সে হলো আনারসের বাবুল ওমর। এছাড়া যত মার্কা সব নৌকা ছিদ্র করার লাইগা। তো, দ্বিতীয় কোন কথা চলবো না। চরকিশোরগঞ্জের সব ভোট আনারস। অন্য কোন মার্কায় কোন ভোট পড়বো না। পড়তে পারে দু-একটা। দশ জনের মধ্যে দু-একটা দুষ্টু গরু থাকে। তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, ঘরেই থাকেন। যদি আনারসে ভোট দিতে চান কেন্দ্রে আইসেন, না দিতে চাইলে ঘরে থাইকেন। আপনাদের ভোটের দরকার নাই। সব ভোট আনারস। যে কথা নাসির মেম্বার বইলা গেছে সে কথাই শেষ, চর কিশোরগঞ্জের ভোট রিজার্ভ। দ্বিতীয় কোন কথা, দ্বিতীয় কোন নেতা চর কিশোরগঞ্জে জন্মায়নাই, জন্মইব না।’

প্রার্থীর উপস্থিতিতে সমর্থকের এমন হুমকির পর চরকিশোরগঞ্জ এলাকায় জালভোট ও নাশকতার শঙ্কা প্রকাশ করে ওই এলাকায় সার্বক্ষণিক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের আবেদন জানিয়েছেন মাহফুজুর রহমান কালাম।

আবেদনে কালাম বলেন, ‘চরকিশোরগঞ্জ অত্যন্ত দুর্গম একটি এলাকা। ওই কেন্দ্রে আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে শক্তি প্রদর্শন করে জাল ভোট এবং নাশকতামূলক কার্যক্রম চালানোর পরিকল্পনা নিয়েছে। এরই মধ্যে আনারস প্রতীকের সমর্থক রাসেল উদ্দিন আনারস প্রতীকে ভোট না দিলে ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে নিষেধ করেছেন। ফলে ওই এলাকার সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।’

সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য চর কিশোরগঞ্জ কেন্দ্রে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও সার্বক্ষনিক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের আবেদন জানান তিনি।

তবে, এই বিষয়ে কথা বলতে আনারস প্রতীকের প্রার্থী বাবুল হোসেনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি। গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাবুল হোসেন ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছিলেন।

এর আগে, মাহফুজুর রহমান কালামকে সমর্থন দেওয়ায় জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আবু জাফর চৌধুরীকে (বীরু) উদ্দেশ্য করে এক বক্তব্যে বাবুল হোসেন বলেন, তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে দুইমাসের মধ্যে সোনারগাঁ থেকে ‘চৌধুরী বংশকে’ উচ্ছেদ করা হবে।

এদিকে, ভোটারদের কেন্দ্রে না আসতে নিষেধ করে সমর্থকের বক্তব্যের ঘটনায় প্রার্থী বাবুল হোসেনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে জানিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা সাকিব আল রাব্বি বলেন, ‘সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোটের জন্য সবধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ভোটের দিন কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা দেখা দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থীর সবাই আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম ও উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য বাবুল হোসেনের মধ্যে মূল লড়াইয়ের সম্ভবনা তৈরি হয়েছে। বাকি দুই প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু ও সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দার প্রচারণায় নেই।
 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়