১৬ জুলাই ২০২৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত: ২০:২৫, ১৭ নভেম্বর ২০২৩

‘রণবনে’ সপ্তাহব্যাপী শিল্পকর্ম প্রদর্শনী সমাপ্ত

‘রণবনে’ সপ্তাহব্যাপী শিল্পকর্ম প্রদর্শনী সমাপ্ত

স্বর্গীয় রণবীর রায় চৌধুরীর সন্তানদের উদ্যোগে গড়ে তোলা ‘রণবীর রায় চৌধুরী স্মৃতি সংসদ’ এর শ্যামা পূজা উপলক্ষে  ‘অনুরক্তি’ শিরোনামে শিল্পকর্ম প্রদর্শনীর শুক্রবার (১৭ নভেম্বর) ছিল শেষ দিন। নারায়ণগঞ্জ শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকায় ‘রণবন’ নামে ছাদবাগানে গত ১২ নভেম্বর থেকে এই প্রদর্শনী শুরু হয়েছিল। ‘রণবন আর্ট স্পেস’ এর আহ্বানে সনাতন পৌরাণিক বিভিন্ন বিষয়ের সম্মিলনে বাংলাদেশের ১২ জন ও ভারতের ১জন শিল্পীর শিল্পকর্ম ছিল এ প্রদর্শনীতে।

‘রণবীর রায় চৌধুরী স্মৃতি সংসদ’ এর পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আবহমান বাংলার শক্তিপ্রবাহের প্রতীক মা শ্যামা- যিনি কালকে স্বরূপে ধারণ করে, অশুভকে দমন করে, অজেয়কে জয় করে হয়ে উঠেছেন ‘মা কালী’। শ্যামা মা অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন স্বর্গীয় রণবীর রায় চৌধুরীর জীবনেও। ৪৯ বছর আগে পারিবারিকভাবে শ্যামা মায়ের পূজা শুরু করেছিলেন তিনি। অত্যন্ত নিষ্ঠার সাথে, পরম মমতায়, ভক্তি ভরে আমৃত্যু তিনি মায়ের পূজা করে গেছেন। ২০০৫ সালে রণবীর রায় চৌধুরীর দেহান্তরের পর তাঁর উত্তরাধিকারেরা বাবার আকাঙ্ক্ষাকে বয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তাঁর সন্তানেরা গড়ে তুলেছেন রণবীর রায় চৌধুরী স্মৃতি সংসদ; গড়ে তুলেছেন ‘রণবন’ নামের এক ছাদবাগান ও সৃজনশীল আড্ডার কেন্দ্র। এই রণবনকে কেন্দ্র করেই ২০০৫ সাল থেকে নতুন পরিসরে বাৎসরিক এ আয়োজনটি করা।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, পারিবারিকভাবে এ পূজানুষ্ঠানটি আয়োজিত হলেও এটি নারায়ণগঞ্জসহ সারাদেশের অসংখ্য দর্শনার্থীর আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে আছে। শুরুতে এ পূজার সজ্জায় শ্যামা মায়ের প্রতিমা ঘিরে থাকতো কাহিনী নির্ভর ছোট ছোট বিভিন্ন দৃশ্য-প্রতিমা। ২০২২ সালে ৪৯তম আয়োজনে এ আয়োজনে এসেছে নতুন মাত্রা। সেইবার পূজার উৎসবকে ঘিরে ছিল নারায়ণগঞ্জ ফটোগ্রাফিক ক্লাবের সদস্যদের দেশ-বিদেশের বিভিন্ন স্থানের ধর্মীয় সংস্কৃতি, আচার, ভক্তি এবং বিভিন্ন পূজা-পার্বণের আলোকচিত্র নিয়ে ‘অনুরক্তি’ শিরোনামে আলোকচিত্র প্রদর্শনী।

‘রণবীর রায় চৌধুরীর হাত ধরে শুরু হওয়া শ্যামা পূজার সুবর্ণজয়ন্তী ছিল এ বছর। শ্যামা মায়ের প্রতি অর্ঘ্য নিবেদনে ‘অনুরক্তি’ শিরোনামে এবারের আয়োজনে ছিল শিল্পকর্ম প্রদর্শনী। এ প্রদর্শনীর জন্য ‘রণবন আর্ট স্পেস’ থেকে দেশবরেণ্য প্রবীণ ও খ্যাতিমান তরুণ শিল্পীদের শিল্পকর্ম দেয়ার অনুরোধ করা হয়। তাঁরা যথা সময়ে তাঁদের শিল্পকর্ম পৌঁছে দিয়ে কৃতজ্ঞতা পাশে আবদ্ধ করেছেন।’

সুবর্ণজয়ন্তীতে শেষ হলো ‘রণবন আর্ট স্পেস’ এর। ভবিষ্যতে রণবন আর্ট স্পেস থেকে দেশ-বিদেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের বহুমাত্রিক সম্মিলনে চিত্রকলা, স্থাপত্য, আলোকচিত্রের প্রদর্শনী করার আকাঙ্ক্ষা আছে।

প্রদর্শনীতে অংশগ্রহন করা খ্যাতিমান চিত্র শিল্পীদের মধ্যে ভারত ও বাংলাদেশের ১৩ শিল্পীরা হলেন রণজিৎ দাস, তরুণ ঘোষ, সমীরণ চৌধুরী, গুপু ত্রিবেদী, বিশ্বজিৎ গোস্বামী, গোপাল চন্দ্র নস্কর, মনির মৃত্তিক, খন্দকার নাসির আহম্মদ, মুনতাসীর মঈন, লিটন সরকার, জিয়াউর রহমান  জয়, দিতিপ্রিয়া রায় চৌধুরী এবং জয় কে রায় চৌধুরী। 

এ বিষয়ে আয়োজক রণবন আর্ট স্পেস এর প্রতিষ্ঠাতা জয় কে রায় চৌধুরী জানিয়েছেন, আগামীতেও এমন আয়োজন চলমান থাকবে।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়