১৬ এপ্রিল ২০২৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত: ২০:৫৩, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আলী আহাম্মদ চুনকা ছিলেন গণমানুষের নেতা: স্মরণসভায় বক্তারা 

আলী আহাম্মদ চুনকা ছিলেন গণমানুষের নেতা: স্মরণসভায় বক্তারা 

'আলী আহাম্মদ চুনকা ছিলেন গণমানুষের নেতা, তিনি আজীবন খেটে খাওয়া মানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন। তিনি সব সসময় ন্যায় ও সততার সাথে এবং অন্যায়ের বিরুদ্ধে কাজ করেছেন।' 

মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, ভাষাসৈনিক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত পৌরপিতা আলী আহাম্মদ চুনকার ৪০ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে এক আলোচনা ও দোয়ার অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। 

সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেন, বিচার কাজের জন্য আলী আহম্মদ চুনকা ভাইয়ের অনেক নাম ছিলো। তিনি সব সসময় অন্যায়ের বিরুদ্ধে কাজ করে গেছেন। সব সময় ন্যায় ও সততার সাথে কাজ করেছেন। আমি শ্রদ্ধার সাথে চুনকা ভাইকে স্মরণ করছি। 

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহিদ বাদল বলেন, নারায়ণগঞ্জ শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার পৌরপিতার প্রতি গভীরভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করছি। আমি গভীরভাবে শ্রদ্ধা নিবেদন করছি তার সহধর্মিণী ও জনপ্রিয় নেত্রী আইভীর মা মমতাজ বেগমের প্রতি। আজকে শুধুই বলতে চাই, মঞ্চে যদি বড় বড় কথা বলি ও মঞ্চের বাইরে কথার সাথে কাজের কোন মিল না থাকে তাহলে সেই বক্তব্য হয় নিরর্থক। চুনকা ভাইয়ের মৃত্যুবার্ষিকীর আজকের এদিনে আমি বলতে চাই আমাদের এই আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে চুনকা ভাই, জোহা ভাইয়ের ছবি লাগানোর দাবি জানাই।  সাথে মনির ভাইয়ের ছবিটাও যেন থাকে। আমাদের এখন বিদায়ের পালা। তাই নতুনদের এগিয়ে দিন। নতুনদের সুযোগ করে দিতে হবে।

মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত বলেন, মরহুম আলী আহাম্মদ চুনকা সাহেব ছিলেন জনমানুষের নেতা। উনি খেটে খাওয়া মানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন। কৃষক-শ্রমিকদের সাথে উনার সম্পৃক্ততা বেশি ছিল। সবাই জানতেন, উনার চলাফেরা ছিল সাধারণ মানুষের মত।

জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান বলেন, শিক্ষক-শ্রমিকসহ আপামর জনতার কাছে উনি চুনকা ভাই হিসেবে পরিচিত ছিলেন। কখনও চুনকা সাহেব হিসেবে পরিচিত ছিলেন না। ৩-৪ বছর আগে চুনকা ভাইয়ের স্মরণ সভায় চুনকা ভাই লেখা হত, চুনকা সাহেব না।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই'র সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহিদ বাদলের সঞ্চালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চু, অ্যাড. আসাদুজ্জামান, আরজু রহমান ভূঁইয়া, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, সাবেক সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক নুর হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা জসিম উদ্দিন, শামসুজ্জামান ভাসানী, মো. শহিদুল্লাহ প্রমুখ।
 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়