১৬ এপ্রিল ২০২৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত: ২১:৩৪, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

গঠনতন্ত্র না মেনে সাগরকে অব্যাহতি

গঠনতন্ত্র না মেনে সাগরকে অব্যাহতি

নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে তালা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে গালিগালাজের অভিযোগ এনে মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্যপদ থেকে সাব্বির আহমেদ সাগরকে অব্যাহতি দেয়া হয়। মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) মহানগর আওয়ামী লীগের এক জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান দলের দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট বিদ্যুত কুমার সাহা। তবে অব্যাহতি দেওয়ার ক্ষেত্রে দলের গঠনতন্ত্র মানা হয়নি বলে দাবি করেছেন সাগর ও আওয়ামীলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। তারা বলছেন, নিয়ম অনুযায়ী কোনো কর্মকর্তা বা সদস্যকে অব্যাহতি দেওয়ার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট শাখার সাধারণ সভায় দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যের মত, উর্ধ্বতন শাখার অনুমোদনের প্রয়োজন রয়েছে। তবে সাব্বির আহমেদ সাগরের ক্ষেত্রে তার কিছুই মানা হয়নি। এ নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। 

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এডভোকেট বিদ্যুত কুমার সাহা জানান, দলের উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা ও নির্দেশনায় মহানগর আওয়ামী লীগের জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে তালা দেয়ায় ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে গালিগালাজের কারণে গঠনতন্ত্রের ৪৭ (ঞ) ধারায় মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্যপদ থেকে সাব্বির আহমেদ সাগরকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এবং তার প্রাথমিক সদস্যপদ কেন বাতিল করা হবে না মর্মে ১৫ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। 

আওয়ামী লীগের দলীয় গঠনতন্ত্রের ৪৭ (ঞ) ধারায় বলা হয়েছে, সংগঠনের যেকোনো শাখা তাহার যেকোনো কর্মকর্তা বা সদস্যকে দলের স্বার্থ, আদর্শ, শৃঙ্খলা তথা গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্র পরিপন্থী কর্মকান্ডের জন্য স্ব-স্ব পদ বা দায়িত্ব হইতে অব্যাহতি প্রদান করিতে পারিবে। তবে এ ব্যাপারে উর্ধ্বতন শাখার অনুমোদন প্রয়োজন হইবে এবং এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট শাখার সাধারণ সভায় দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত গৃহীত হইবে। উর্ধ্বতন শাখা পরবর্তী এক মাসের মধ্যে তাহার সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট শাখাকে জানাইবে, অন্যথায় গৃহীত সিদ্ধান্তের সহিত উর্ধ্বতন শাখা একমত বলিয়া গণ্য হইবে।

মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘গঠনতন্ত্র মেনেই তাকে কমিটি থেকে অব্যাহতি দিয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে৷ কেউ দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে তাকে জরুরি সভার সিদ্ধান্তে অব্যাহতি দিয়ে শোকজ নোটিশ দেওয়া যায়৷’

অব্যাহতি প্রসঙ্গে জানতে সাব্বির আহমেদ সাগরের বলেন, ‘ প্রয়াত জননেতা একেএম শামসুজ্জোহা সাহেবের মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচনা সভা ও দোয়ার অনুষ্ঠানে আমাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে বলে শুনেছি। কিন্তু মহানগর আওয়ামী লীগের অনেক নেতা এই সভার কথা জানেন না। আমাকে অব্যাহতি দেওয়ার ক্ষেত্রে গঠনতন্ত্র মানা হয়নি। 

মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত বলেন, কাউকে অব্যাহতি দিতে হলে সংশ্লিষ্ট শাখার সাধারণ সভায় দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত গৃহীত হতে হবে। জরুরি সভা করে কাউকে অব্যাহতি দেয়া যায়না। আমি মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমিও এই সভার কথা জানিনা। ব্যক্তি বিশেষের ইচ্ছায় কাউকে অব্যাহতি দেয়া যায় না। সাগরকে অব্যাহতি দেওয়ার ক্ষেত্রে গঠনতন্ত্র মানা হয়নি। সাগর আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে নয়, একজন নেতার ব্যক্তিগত কক্ষে তালা দিয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে অনেক ওয়ার্ডে দলের ত্যাগী প্রবীণ সাংগঠনিক নেতাদের বাদ দিয়ে ব্যক্তি বিশেষের পছন্দের লোকদের নিয়ে কমিটি করা হয়েছে। কোন আলোচনা ছাড়াই এইসব কমিটি করে আওয়ামী লীগকে অসম্মানিত করা হয়েছে।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়