২০ মে ২০২৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত: ২১:৫৬, ৮ এপ্রিল ২০২৪

শামীম-সেলিম ভাই চাইলে শহরে হকার, যানজট থাকবে না: আইভী

শামীম-সেলিম ভাই চাইলে শহরে হকার, যানজট থাকবে না: আইভী

নগরীর বড় একটি সড়কের একপাশ হকারদের ব্যবসার জন্য দিলেও তারা বঙ্গবন্ধু সড়কের ফুটপাতে বসায় ‘জনপ্রতিনিধের অপমান’ করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী৷

সোমবার (৮ এপ্রিল) বিকেলে চাষাঢ়ায় বিকেএমইএ ভবনে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন৷

আইভী বলেন, ‘হকার সমস্যা সারা বাংলাদেশে সব জায়গায় আছে। জনপ্রতিনিধিদের স্বদিচ্ছা আছে, প্রশাসন এগিয়ে এসেছে। খুব শ্রীঘ্রই সমাধান হয়ে যাবে৷ যাদের এত বড় জায়গা দেয়ার পরও বঙ্গবন্ধু সড়কে যাচ্ছে, তাতে আমি মনে করি এটা জনপ্রতিনিধিদের অপমান করা হচ্ছে।’

নারায়ণগঞ্জ রেলস্টেশনের পাশে রেলের কর্মচারী ট্রাস্টের নামে মার্কেট নির্মাণের প্রসঙ্গ টেনে নাসিক মেয়র বলেন, ‘এক নম্বর রেলগেট এলাকায় বিশাল বড় মার্কেট হচ্ছে। রেলওয়ের প্রাক্তন কর্মচারীরা মার্কেট করছে। আমরা সকলে নিশ্চুপ, জানি না, বলছিও না। বারবার চেষ্টার পরও একটি শহরে আমরা মানুষদের জায়গা দিতে পারছিনা। এর মধ্যে রেলওয়ের প্রাক্তন কর্মচারীদের জন্য ভবন করে মার্কেট বানানো হচ্ছে। যেখানে সরকারিভাবে ‘মাল্টিমডেল হাব’ হবার কথা। সংসদে সংসদ সদস্যরা এ প্রকল্প পাশ করিয়েছে। নৌমন্ত্রণালয়, যোগাযোগ মন্ত্রণালয় ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন তিনটি প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে একটি বড় হাব হবে। যেখানে রেল স্টেশন, নৌ টার্মিনাল ও বাস টার্মিনাল থাকবে। সেটাকে তোয়াক্কা না করে এত বড় মার্কেট হচ্ছে। সকলে নিশ্চুপ, কিন্তু নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নিশ্চিুপ না। আমরা চেষ্টা করেছি।’
তিনি আরও বলেন, ‘অনেক কাজই তো করতে পারি না, মন খুলে বলতেও পারি না। ইভেন্টে ডাকছেন, আসছি, কথা বলছি। চেষ্টা করছি সবার সাথে মিলে কাজ করার জন্য। কিন্তু এর মানেই এ না যে এ শহরে যে যা খুশি তা করবে। অন্যান্য সংস্থা এসে আমাদের অধিকার খর্ব করে তারা নিজের জন্য ব্যবস্থা করবে আর নারায়ণগঞ্জের মানুষ চেয়ে চেয়ে দেখবে? এটা হয় না।‘

হকার সমস্যা নিয়ে আইভী বলেন, ‘সমস্যা আমি খুব বেশি দেখি না। যে দু-একটা সমস্যা আছে সেটা শামীম ও সেলিম ভাই বসে যদি শুধু বলে দেয় তাহলেই তাৎক্ষণিকভাবে সমাধান হয়ে যায়। আমি শামীম ভাইকে বলেছিলাম আপনি যদি বলেন, তাহলে কাল থেকে বঙ্গবন্ধু সড়কে কেউ বসবে না। একজন হকারও বসবে না। শামীম ভাই তো বললো না। বললে তো একজন হকারও থাকে না।’

তিনি বলেন, ‘এটা সত্য, উনি (শামীম ওসমান) বললে থাকবে না। আসাদ কই পালায়ে যাবে খুঁজেও পাবে না। উনি ৫ মিনিট সময় দিলে সে দুই মিনিটে পালিয়ে যাবে। যানজট থেকে শুরু করে সবকিছুর সমাধান হবে। শামীম ভাই, সেলিম ভাই চাইলে শহরে কিছুই থাকবে না।’

সিটি মেয়র বলেন, ‘সেলিম ভাই বলসে মাথা ঠান্ডা রাখতে। আমি কখনোই গরম হই না। চেষ্টা করি ঠান্ডা মাথায় কথা বলার জন্য। ঈদের পর বসবে, আমি চেষ্টা করবো বসার জন্য। সিদ্ধিরগঞ্জে লেক আমরা করেছি। লেক করেছি বলে নারায়ণগঞ্জের মানুষ বেঁচে থাকবে। এগুলো যদি ভরাট করা হয় তাহলে নারায়ণগঞ্জ বাঁচবে না। আমাদের প্রত্যেক সড়কের সঙ্গে কানেকটিং ড্রেন আছে। আর্মি কাজ শেষ করলে আমরা চেষ্টা করবো তারা যেখানে পানি ফেলছে সেখানে কানেকশন দিয়ে দেয়ার।’

নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বিল্লাল হোসেন রবিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম জীবনের সঞ্চালনায় এসময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমানসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

সর্বশেষ

জনপ্রিয়