১৬ জুলাই ২০২৪

প্রকাশিত: ২১:৩০, ৬ জুলাই ২০২৪

দুর্নীতি ও লুটপাটে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি হয়েছে : সিপিবি

দুর্নীতি ও লুটপাটে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি হয়েছে : সিপিবি

দুর্নীতি-লুটপাট ও দুঃশাসনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো, বিদেশে পাচার টাকা দেশে ফিরিয়ে আনা, খেলাপী ঋণ উদ্ধার'সহ দুর্নীতিবাজদের বিচারের দাবিতে নারায়ণগঞ্জে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)। 

শনিবার বিকেল ৫ টায় চাষাড়া শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ সমাবেশ করা হয়েছে। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সিপিবি জেলা কমিটির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, বক্তব্য রাখেন জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা শিবনাথ চক্রবর্তী, জেলা কমিটির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ইকবাল হোসেন, আব্দুস সালাম বাবুল, জেলা কমিটির সদস্য দুলাল সাহা ও শিশির চক্রবর্তী প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দুর্নীতি- লুটপাট এখন ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। উচ্ছ পর্যায় থেকে শুরু করে সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে দুর্নীতি লুটপাটের ব্যাধি ছড়িয়ে পড়েছে। সমাজ, রাজনীতি ও প্রশাসনে ভয়াবহ নৈরাজ্য সৃষ্টি করেছে। সবেক পুলিশ কর্মকর্তা বেনজীর, সাবেক সেনা কর্মকর্তা আজিজ ও এনবিআরের মতিউরদের ব্যাপক অবৈধ সম্পদের পাহাড় দেখেই দেশবাসীর কাছে তা পরিস্কার হয়েছে। দুর্নীতিবাজেরা সরকারের আশ্রয় প্রশ্রয়ের মাধ্যমে দুর্নীতি ও লুটপাটের রাজত্ব কায়েম করেছে। রাজনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করে অসাধু ব্যবসায়ীরা বাজার সিন্ডিকেট করে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে জনগণের পকেট লুটে নিচ্ছে। ব্যাংক থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট হয়ে যাচ্ছে। লুটের টাকা বিদেশে পাচার করে দেয়া যাচ্ছে। ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ফেরত দেয়া হচ্ছে না। ফলে ব্যাংক গুলো দেওলিয়া হয়ে যাচ্ছে। সরকার দুর্নীতির প্রশ্নে ‘জিরো টলারেন্স’ এর কথা বললেও বাস্তবে সরকারের প্রশ্রয়েই দুর্নীতির রাজত্ব কায়েম হয়েছে। 

বক্তারা আরও বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ সরকার গত ৩ টি নির্বাচনে আমলা প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে জনগণের ভোট ছাড়া ক্ষমতায় এসেছে। ফলে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবেনা। এরা একে অপরের সহযোগী। দুর্নীতির কথা উঠলেই মন্ত্রীরা পাল্টা প্রশ্ন করেন ‘পৃথিবীর কোন দেশে দুর্নীতি নেই। ঋণখেলাপিদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো তাদেরকে সুবিধা দিচ্ছে। কালোটাকা উদ্ধার না করে এবারের বাজেটে ১৫% কর দেয়ার মাধ্যমে কালো টাকা সাদা করার অনুমতি দেয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে দুর্নীতিকে জায়েজ ও প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়া হচ্ছে। দেশে এই নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টির কারণে সাধারণ মানুষ আজ চরম সংকটে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। শ্রমজীবী সাধারণ মানুষ আয়-ব্যয় সমন্বয় করতে পারছে না। দেশে কোটি কোটি যুবক বেকার কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা নেই। দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতির কষাঘাতে নিম্ন আয়ের মানুষ আজ দিশেহারা। এই দুরাবস্থা থেকে দেশের মানুষকে রক্ষা করতে হলে দুর্নীতি ও লুটপাটের রাষ্ট্র ব্যবস্থা বদলাতে হবে। 
 

সর্বশেষ

জনপ্রিয়